এসে গেল দেশের প্রথম সোশ্যাল ডিসটেন্সিং ই-স্কুটার, সাধ্যের মধ্যে হয়ে যাবে সাধ পূরণ


Odd বাংলা ডেস্ক: করোনা মহামারির কারণে সামাজিক দূরত্ববিধি মেনে চলা প্রত্যেকটা মানুষেরই কর্তব্য। তাই এই অবস্থায় গণ পরিবহনের বদলে অনেকেই সাইকেল-বাইক-স্কুটারের দিকে ঝুঁকেছেন। প্রসঙ্গত, সেই প্রয়োজনের কথা মাথায় রেখেই প্রায় এক মাস আগে একটি ভারতীয় ইলেকট্রিক স্কুটার প্রস্তুতকারক সংস্থা জেমোপাই ইলেকট্রিক ভারতের বাজারে দেশের প্রথম সোশ্যাল ডিসটেন্সিং স্কুটার নিয়ে আসার কথা বলেছিল। অবশেষে প্রতীক্ষার অবসান হল। ভারতে লঞ্চ হল জেমোপাই ইলেকট্রিকের প্রথম সোশ্যাল ডিসটেন্সিং ই-স্কুটার যার নাম রাখা হয়েছে মিসো (Miso), যার দাম ৪৪ হাজার টাকা।  

মিসো ই-স্কুটারে রয়েছে লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারি রয়েছে। যার একটি 48v এবং অপরটি 1KW। এক বার পুরো চার্জ দিয়ে নিলে তা ৭৫ কিলোমিটার অবধি প্রযন্ত যেতে পারবে। প্রতি ঘণ্টায় এর গতিবেগ ২৫ কিলোমিটার। সংস্থার তরফে দাবি করা হয়েছে মাত্র ২ ঘণ্টাতেই ৯০ শতাংশ পর্যন্ত চার্জ সম্পন্ন হয়ে যাবে। 

সোশ্যাল ডিসটেন্সিং-এর কথা মাথায় রেখে এই ই-স্কুটারে রয়েছে একটি সিট। তবে জিনিসপত্র মালপত্র বহন করার জন্য রয়েছে একটি ক্যারিয়ারও, যা ১২০ কেজি পর্যন্ত ওজন বহনে সক্ষম। তবে সবচেয়ে অবাক করা বিষয় হল এই মিনি স্কুটার চালানোর জন্য আপনাকে লাইসেন্স বানানোর প্রয়োজন হবে না। 

মিসোর লক্ষ্য ক্রেতারা হল নবপ্রজন্মের যুবরা, যাদের প্রতিদিন নিজেদের অফিস যাওয়ার জন্য প্রবল সমস্যার সম্মুখীন হন, নিত্যদিন ট্রাফিক জ্যামেই যাদের নষ্ট হয় সময়। পাশাপাশি সাম্প্রতিককালে মহামারি পরিস্থিতিতে সুরক্ষাবিধি মেনে চলার জন্য মিসোর সিঙ্গেল সিট এই ই-স্কুটার সব সমস্যার সমাধান হতে পারে বলেই দাবি করছে সংস্থা।
এসে গেল দেশের প্রথম সোশ্যাল ডিসটেন্সিং ই-স্কুটার, সাধ্যের মধ্যে হয়ে যাবে সাধ পূরণ এসে গেল দেশের প্রথম সোশ্যাল ডিসটেন্সিং ই-স্কুটার, সাধ্যের মধ্যে হয়ে যাবে সাধ পূরণ Reviewed by Odd Creator on June 28, 2020 Rating: 5
Powered by Blogger.